প্রথমবারের মত ঐক্যবদ্ধ হচ্ছেন বিশ্বের মুসলিম নেতারা

রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রথমবারের মত ঐক্যবদ্ধ হতে চলেছেন মুসলিম বিশ্বের নেতারা। সৌদি আরবের জেদ্দায় চলছে ওআইসি’র ১৪তম সম্মেলন।

সেখানে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীসহ সংখ্যালঘু মুসলিমদের জন্য কঠোর অবস্থান নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন মুসলিম নেতারা। আজ চলছে মন্ত্রিপর্যায়ের সম্মেলন। আগামী ৩১শে মে এ সম্মেলনে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দেরিতে হলেও রোহিঙ্গা ইস্যুতে ঐক্যবদ্ধভাবে সরব মুসলিম দেশগুলোর সহযোগী সংস্থা ওআইসি। চলমান মক্কা সম্মেলনের মধ্যে সংস্থাটির নিজস্ব যোগাযোগের মাধ্যমে উপস্থাপন করা হয়েছে ভিডিও। যেখানে লেখা হয়েছে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীসহ সমগ্র মুসলিমদের জন্য স্পষ্ট অবস্থান নিতে যাচ্ছে মুসলিম নেতারা।

আগামী ৩১ মে মক্কা নগরীতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ওআইসির এই চতুর্দশ ইসলামিক সম্মেলন। তিন দিনের জাপান সফর শেষে ওইদিনই টোকিও থেকে সৌদি আরব যাবেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সম্মেলনে ওআইসির সদস্য রাষ্ট্র, অবজার্ভার রাষ্ট্র, ওআইসি প্রতিষ্ঠানসমূহ ও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রধানসহ মোট ১৪৮টি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি দল অংশ নেবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, এই শীর্ষ সম্মেলন থেকে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যে রোহিঙ্গাদের আইনি অধিকার প্রতিষ্ঠার বিষয়ে মামলা করার প্রক্রিয়াটি এগিয়ে নেয়া যাবে বলে আশা করা যায়।

এই সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেয়ার পাশাপাশি সাইড লাইনে বেশ কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সাক্ষাতের সম্ভাবনা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

ড. মোমেন জানান, রোহিঙ্গা ইস্যুর পাশাপাশি কিছু মুসলিম দেশে সংঘাত ও অন্তর্দ্বন্দ্ব বিশ্বব্যাপী মুসলমানরা যে ধরনের মানবিক বিপর্যয়ের সম্মুখীন হচ্ছে কিভাবে সেগুলোর সমাধান করা যায়, বিশ্বব্যাপী যে ইসলাম ফোবিয়া তৈরি হয়েছে তা দূরীকরণের উপায়,

মুসলিম উম্মাহর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কর্মপরিকল্পনা, ওআইসি দেশগুলোর মধ্যে অর্থনৈতিক, বাণিজ্যসহ বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা এগিয়ে নেয়া, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি উদ্ভাবন বিষয়ক ওআইসি এজেন্ডা প্রভৃতি বিষয় আলোচনায় স্থান পাবে।

এ ছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের উত্তেজনা এবং প্যালেস্টাইন ও আলকুদস বিষয়ে প্যালেস্টাইনীদের ন্যায়সঙ্গত দাবি ও অধিকারের বিষয় আলোচনায় বরাবরের মতোই গুরুত্ব পাবে বলেও জানান তিনি।

ড. মোমেন বলেন, ‘সমস্ত ঘটনাপ্রবাহ এবং আনুষঙ্গিক সম্ভাবনা-সম্ভার (পসিবিলিটি ফ্রন্টিয়ার) পর্যালোচনা করে এটি প্রতীয়মান যে, আসন্ন চতুর্দশ ওআইসি শীর্ষ সম্মেলন আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক এবং রাজনৈতিক ঘটনাপ্রবাহে এক উল্লেখযোগ্য মাইলফলক হিসেবে পরিগণিত হবার সবগুলো গুণাবলী অর্জন করতে চলেছে।’

২০১৯ সালের ওআইসি শীর্ষ সম্মেলন অনেকগুলো নাটকীয় ঘটনার মধ্য দিয়ে পরিভ্রমণ করে শেষ পর্যন্ত সৌদি আরবে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, প্রথমে এই শীর্ষ সম্মেলন পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়ায় অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল। গাম্বিয়া ২০১৯ সালের শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠানের দায়িত্ব থেকে সরে আসে এবং এর পরবর্তী (অর্থাৎ পঞ্চদশ ওআইসি শীর্ষ সম্মেলন) অনুষ্ঠানের জন্য পুনরায় প্রস্তাবনা পেশ করে।

ইতোমধ্যে চতুর্দশ শীর্ষ সম্মেলনের সাইড লাইনে ২৮-৩০ মে ২০১৯ তারিখে রোহিঙ্গা বিষয়ক মন্ত্রী পর্যায়ের অ্যাডহক বৈঠক গাম্বিয়ার নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র ছাড়া কোনো শান্তিচুক্তি নয়, জানালো তুরস্ক ও জর্ডান

একটি স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা ছাড়া যেকোনো শান্তিচুক্তি প্রত্যাখ্যান করবে তুরস্ক ও জর্ডান।

ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা ওআইসি এর চেয়ারম্যান হিসেবে তুরস্ক ফিলিস্তিনিদের অধিকার রক্ষায় কোনো প্রচেষ্টাই দেখছে না বলে বুধবার সৌদির আরবের জেদ্দায় সংস্থাটির বৈঠকে মন্তব্য করেন তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু। আনাদোলু এজেন্সি, ইউরেশিয়া রিভিউ

মেভলুত কাভুসোগলু বলেন, একটি স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনে ঐক্যবদ্ধ শক্তি গড়ে তোলা ও ওআইসি এর সমন্বিত প্রচেষ্টা অত্যন্ত প্রয়োজন। এটি এমন একটি দায়িত্ব যা প্রথমে আমাদের সামরিক বাহিনীর ওপর বর্তায়।

জেরুজালেম রক্ষায় ওআইসি এর সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে আবারো অঙ্গীকার করতে হবে। এবং এর সম্মানহানীর ব্যাপারে অন্যদের সাবধান করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, ‘স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র ছাড়া কোনো শান্তিচুক্তি ওআইসি এর সদস্য রাষ্ট্রগুলো মেনে নেবে না বলে আমরা বিশ্বাস করি।’

জর্ডান জানায়, ইসরায়েল-ফিলিস্তিন শান্তিচুক্তি নিয়ে আলোচনা করতে বুধবার দেশটি সফর করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা ও উপদেষ্টা জারেড কুশনার। পূর্ব জেরুজালেমকে রাজধানী করে একটি স্বাধীন ফিলিস্তিনি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে তাকে জানানো হয়েছে।

দুটি স্বাধীন রাষ্ট্র ছাড়া এ অঞ্চলে কোনোভাবে স্থায়ী ও টেকসই শান্তিপূর্ণ পরিবেশ তৈরি হবে না বলে কুশনারের বৈঠকে মন্তব্য করেন দেশটির বাদশা দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ।’-আমাদেরসময়.কম

মুসলিমদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ঘোষণা দিল বৌদ্ধ নেতা

কিছুদিন আগে জেল থেকে ছাড়া পেয়েই, শ্রীলঙ্কায় মুসলিম উগ্রবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়েছেন এক কট্টরপন্থি বৌদ্ধ নেতা। মুসলিমদের বিরুদ্ধে দাঙ্গা উস্কে দেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার হলেও, রাষ্ট্রপতির ক্ষমায় গেল বৃহস্পতিবার মুক্তি দেয়া হয় তাকে।

এদিকে গতকাল ২৮ মে মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে গালাগোদা আত্থে নানাসারা বলেন, ‘বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদের বিষয়ে ধারণা দিতে হবে সাধারণ মুসলিমদের। তাই ধর্মীয় মতাদর্শ ও বিশ্বাস ভিন্ন হলেও, মুসলিমদের পবিত্রতম গ্রন্থ হিসেবে কোরআনের ওপর আলোচনা শুরু করতে হবে।’

এর আগে গত এপ্রিলে ইস্টার উৎসবের প্রার্থনায় সন্ত্রাসী হামলার পর সাধারণ মুসলিমদের বাড়িঘর, মসজিদে হামলার ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছিল নানাসারাকে।

জানা যায়, গত ২০১৪ সাল থেকে সাম্প্রদায়িক বক্তব্য, কোরআন অবমাননাসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। আদালতের শুনানিতে বাধা দেয়ায় ২০১৬ সালে ছয় বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন তিনি। অপহৃত এক সাংবাদিকের স্ত্রী-কে হুমকি দেয়ার কারণেও সাজা হয়েছিল তার।

এ ব্যাপারে কট্টরপন্থী বৌদ্ধ ভিক্ষু গালাগোদা আত্থে নানাসারা বলেন, ‘মুসলিমদের বোঝাতে হবে যে বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদের কেন্দ্র হচ্ছে অর্থ-বৈভব। রাজনীতিবিদদের পক্ষে যা সম্ভব নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘নিজেদের স্বার্থে তারা উল্টো সমস্যা ডেকে আনে। কুরআন আসলে কী শিক্ষা দেয়, তা নিয়ে আলোচনার জন্য আমরা ধর্মীয় নেতারা মতাদর্শগত দিক থেকে নেতৃত্ব দেবো।’

পাকিস্তানের সবচেয়ে অক্ষম প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান: মরিয়ম

নয়া পাকিস্তানের’ স্লোগান দিয়ে ক্ষমতায় আসা ইমরান খানকে পাকিস্তানের সবচেয়ে অক্ষম প্রধানমন্ত্রী বলে মন্তব্য করেছেন বিরোধী দল পিএমএল-এনের ভাইস প্রেসিডেন্ট মরিয়ম নওয়াজ।‘এওমে তাকবির’ দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার লাহোরে এক সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

১৯৯৮ সালের ২৮ মে পাকিস্তান পারমাণবিক পরীক্ষা চালিয়ে বিশ্বের সপ্তম দেশ হিসেবে নাম লেখায়। মুসলিম বিশ্বে পাকিস্তানই পারমাণবিক শক্তিধর প্রথম দেশ। ওই সময় ক্ষমতায় ছিলেন নওয়াজ শরিফ। দিনটিকে ‘এওমে তাকবির’ হিসেবে পালন করা হয়।

নওয়াজ শরিফের মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ বলেন, ইমরান খান দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ, অযোগ্য এক নেতা।
তিনি বলেন, আজ যদি নওয়াজ শরিফ জেলের বাইরে থাকতেন, তা হলে এই পিটিআই (তেহরিক-ই ইনসাফ পাকিস্তান) সরকার টিকত না।

মরিয়ম বলেন, আপনি হয়তো বাছাই করা একজন নেতা। কিন্তু আপনি পাকিস্তানের অক্ষম প্রধানমন্ত্রী। তিনি ব্যর্থতার আড়ালে মুখ না লুকাতে ইমরান খানকে আহ্বান জানান।

টয়লেটে ফেলে যাওয়া সেই নবজাতককে দত্তক নিতে শত শত ফোন, কেবিনে পুলিশ মোতায়েন

রাজধানীর শিশু হাসপাতালের টয়লেট থেকে উদ্ধার করা নবজাতকটিকে দত্তক নিতে শত শত ফোন আসছে শেরে বাংলা নগর থানায়।

হাসপাতালে ফুটফুটে মেয়ে শিশুটিকে দেখতে ও দত্তক নিতে ভিড় করছেন শতাধিক মানুষ। নিরাপত্তার জন্য শিশু হাসপাতালের ওই কেবিনের বাইরে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৪ মে) দুপুরে ওই নবজাতককে হাসপাতালের টয়লেটে দেখে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানান এক রোগীর স্বজন। শিশুটির বয়স আনুমানিক ৩ দিন। উদ্ধারের পর শিশুটিকে ওই হাসপাতালেই ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে শিশুটির বাবা-মাকে খুঁজতে তদন্ত করছে পুলিশ। বুধবার (১৫ মে) সকাল পর্যন্ত তার বাবা-মাকে পাওয়া পাওয়া যায়নি। হাসপাতাল ও আশেপাশের সিসিটিভি ক্যামেরা ফুটেজ দেখে শিশুটিকে কে বা কারা গেলে গেছেন সেই রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করছে পুলিশ।

শেরে বাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানে আলম জাগো নিউজকে বলেন, বুধবার সকাল পর্যন্ত কেউ শিশুটিকে নিজের বলে দাবি করেনি। তবে শিশুটির জন্য রাত থেকে আমার কাছে,

শেরে বাংলা নগর থানার ডিউটি অফিসার এবং ইন্সপেক্টর তদন্তের মোবাইলে শত শত ফোন আসছে। সকাল থেকে আমি নিজেই ১০০’র বেশি ফোন রিসিভ করেছি। সবাই শিশুটিকে দত্তক নিতে চাচ্ছেন। আমরা আইনি প্রক্রিয়া অনুযায়ী তদন্তের কাজ করছি।

তিনি আরও বলেন, রাত থেকেই শিশুটিকে দেখতে ও দত্তক নিতে হাসপাতালে অনেকেই ভিড় করেছেন। এতে শিশুর স্বাস্থ্যের অবনতি হওয়ার আশঙ্কা শিশু হাসপাতালে তার কেবিনের বাইরে পুলিশ মোতায়েন করেছি। চিকিৎসক ও তদন্ত সংশ্লিষ্ট ছাড়া কাউকে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না।

পুলিশের তেজগাঁও জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) মাহমুদ হাসান জাগো নিউজকে বলেন, শিশুটির বাবা-মাকে খুঁজতে রাতে ডিসি-তেজগাঁও-ডিএমপি ফেসবুক পেইজে ছবিসহ একটি পোস্ট দেওয়া হয়।

এরপর থেকে অনেক ফোন আসছে শিশুটিকে দত্তক নেওয়ার জন্য। অনেকে ফেসবুক পোস্টের নিচেই তাদের দত্তক নেয়ার জন্য নাম-ঠিকানা ও সিরিয়াল দিয়ে রাখছেন। আমরা তার বাবা-মাকে খুঁজে বের করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। পরবর্তীতে শিশু আইনে আদালত যা সিদ্ধান্ত দেবে পুলিশ সেটা মেনেই কাজ করবে।

নবজাতকের শারীরিক অবস্থার বিষয়ে শিশু হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ হাকিম জাগো নিউজকে বলেন, শিশুটি এখনো চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করবে শিশু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এদিকে উদ্ধার হওয়া নবজাতকের বাবা-মাকে খুঁজতে তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকারের ফেসবুক পেইজে একটি পোস্ট দেয়া হয়েছে। পোস্টটি অনেককে আবেগাপ্লুত করেছে। পোস্টটি হুবুহু তুলে ধরা হলো-

‘মা, আমাকে নিয়ে যাও, তোমায় ছাড়া ঘুম আসে না আমার’
এই নিষ্পাপ শিশুটিকে শেরে বাংলা নগর থানাধীন শিশু হাসপাতালে পাওয়া গিয়েছে। শেরে বাংলা নগর থানা পুলিশের তত্ত্বাবধানে শিশুটি শিশু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।এই নিষ্পাপ শিশুটি ফিরে পাক তার মা-বাবাকে। মা-বাবার কোল আলোকিত করে বেড়ে উঠুক আসল পরিচয়ে। মা-বাবার কোল ভরে উঠুক সুক্রন্দসী এই নিষ্পাপ শিশুটির কান্না ও হাসিতে।

যদি কোন সহৃদয়বান ব্যক্তি শিশুটির মা-বাবা/পরিচিত জনকে চিনে থাকেন বা তাদের সম্পর্কে কোন তথ্য জেনে থাকেন, নিচে উল্লেখিত মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানানো হলো-

ওসি (শেরে বাংলা নগর থানা): ০১৭১৩৩৯৮৩৩৫
এসি (তেজগাঁও জোন): ০১৭১৩৩৭৩১৭৮

মাত্র পাওয়া: আবহাওয়া অফিস থেকে দারুন সুসংবাদ

বাংলাদেশ অভিমুখে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’। বলা হচ্ছে, প্রতিবেশী ভারতের কয়েকটি অঞ্চল কাঁপিয়ে আসবে বাংলাদেশে।শক্তি বৃদ্ধি পেয়ে বর্তমানে ঘূর্ণিঝড় ফণী ১৮০ থেকে ২০০ কিলোমিটার গতিবেগ ধারণ করে ওড়িশায় আঘাত হেনেছে।

তবে উপকূল ঘেঁষে থাকায় বাংলাদেশে এসে এর গতিবেগ কমে ৯০ থেকে ১০০ কিলোমিটার হতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শামসুদ্দিন আহম্মেদ।

বৃহস্পতিবার রাতে আগারগাঁওয়ের আবহাওয়া অধিদপ্তরে এক ব্রিফিংয়ে তিনি এ তথ্য জানান।

শামসুদ্দিন জানান, শুক্রবার সকাল অথবা দুপুর নাগাদ ফণী ভারতের পুরীর দিকে অবস্থান করতে পারে। সন্ধ্যা কিংবা মধ্যরাতে খুলনার দিকে অবস্থান করতে পারে। যার গতিবেগ থাকবে ৯০ থেকে ১০০ কি মি।

তিনি আরো বলেন, সরাসরি বাংলাদেশে আঘাত হানবে না সামুদ্রিক জলোচ্ছাস ফণী। এখন পর্যন্ত এর গতিপথ পাল্টানোর কোনো সম্ভাবনা নেই। তাই এখন পর্যন্ত সতর্ক সংকেত বাড়ারও কোনো সম্ভাবনা নেই।

ব্রেকিং : ঘণ্টায় ২০০ কিলোমিটার শক্তি সঞ্চয় করছে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’

ভয়ঙ্কর হতে যাচ্ছে বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ফণী । ইতোমধ্যে ঘূর্ণিঝড়রটির কেন্দ্রের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। শেষ পর্যন্ত এটা ১৮০ থেকে ২১০ কিলোমিটার গতিতে উপকূলে উঠে আসতে পারে। ঘূর্ণিঝড় ফণী কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১১৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১১৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ১১৪০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল।

আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড়টি এর গতিপথ পরিবর্তন করতে পারে। আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে ঠিক হতে পারে কোন এলাকা দিয়ে উপকূলে উঠে আসতে পারে। এটা সামান্য পূর্বদিকে সরে আসলেই বাংলাদেশের সুন্দরবন ও বরিশাল উপকূল দিয়ে উঠে আসার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এটা প্রতিনিয়ত গতিপথ পরিবর্তন করে যাচ্ছে। আমেরিকান আবহাওয়া অফিস ফণী মডেল ও এর গতি সম্বন্ধে জানিয়েছে, উপকূলে উঠে আসার সময় ফণীর গতি হতে পারে ঘণ্টায় ২১০ কিলোমিটার। যা হতে পারে অতি ধ্বংসাত্মক।

আবহাওয়াবিদরা জানান, বাংলাদেশের উপকূল থেকে এর দূরত্ব ধীরে ধীরে কমে আসছে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ফণী ১২৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এটি মাত্র ২০ কিলোমিটার এগিয়েছে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, ফণী আরো শক্তিশালী হয়ে উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১৭০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছে সাগর খুবই উত্তাল রয়েছে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমূদ্র বন্দরসমূহকে ২ (দুই) নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ৪ (চার) নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেই সাথে তাদেরকে গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

তারেক রহমানের নির্দেশেই শপথ নিতে এসেছি

দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে শপথ নিতে সংসদ ভবনে পৌঁছেছেন বিএনপি থেকে একাদশ জাতীয় সংসদে নির্বাচিত ৪ সদস্য। আজ সোমবার (২৯ এপ্রিল) বিকেল ৪টার দিকে তাঁরা সংসদ ভবনে পৌঁছেছেন বলে জানা গেছে।

সংসদে যাওয়ার আগে এমপি হারুনুর রশিদের বাসায় তারা মিলিত হন। এরা হলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের হারুনুর রশীদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের আমিনুল ইসলাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের আবদুস সাত্তার ভুঁইয়া এবং বগুড়া-৪ আসনের মোশাররফ হোসেন।

জানা গেছে, তাদের শপথ পড়াতে প্রস্তুত স্পিকারের কার্যালয়ও। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী তাদের শপথ পড়াবেন। তবে শপথ নিতে এসে হারুনুর রশীদ জানান, তারেক রহমানের নির্দেশেই শপথ নিতে এসেছি। এর আগে শপথ নিয়েছেন ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের জাহিদুর রহমান জাহিদ ও গণফোরামের মোকাব্বির খান।

তবে বিএনপি থেকে নির্বাচিত ছয়জনের মধ্যে বিএনপির মহাসচিব ও বগুড়া-৬ আসন থেকে নির্বাচিত মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শপথ নিচ্ছেন না বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, বিএনপি থেকে নির্বাচিত ছয়জন সংসদ সদস্য হলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের হারুনুর রশীদ, বগুড়া-৬ আসনের মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের আমিনুল ইসলাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের আবদুস সাত্তার ভুঁইয়া, বগুড়া-৪ আসনের মোশাররফ হোসেন এবং ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে জাহিদুর রহমান জাহিদ (বহিষ্কৃত)।

যে কারণে সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকে মামলা করবে- মাশরাফি

নিজ এলাকার উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে ঘুরছেন সদ্য নির্বাচিত সংসদ সদস্য বাংলাদেশ জাতীয় ক্রকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। তারই অংশ হিসেবে এবার সন্ত্রাস ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছেন নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত এই ক্রিকেট তারকা।দুর্নীতির বিষয়ে কথা বলার সময় মাশরাফি বলেন, আমি একজন সরকারি কর্মকর্তার ফাইল রেডি করে আনছি। আমি নিজেই দুদকে মামলা করব তার নামে।

বুধবার দুপুরের দিকে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তা ও সুধিজনদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা।বিভিন্ন দপ্তরের কাজে স্বচ্ছতার কথা উল্লেখ্য করে মাশরাফি বলেন, যারা দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেয় তারাও দোষে দোষী। আপনারা নিজ নিজ দায়িত্ব সততা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করবেন। স্বচ্ছতার সাথে কাজ করতে গিয়ে যদি কেউ হুমকি দেয় তাহলে আমাকে জানাবেন। কারও বিরুদ্ধে কোনো অনিয়ম পেলে ছাড় দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

ইতিমধ্যে নড়াইলের একজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন দুর্নীতির তথ্য আমার হাতে এসেছে। আমি নিজেই ওই কর্মকর্তার নামে দুদকে মামলা করবো’।মাশরাফি বলেন, আমি একা বলে কি হবে, আপনাদেরকেও এসব কাজে সহযোগিতা করতে হবে, তথ্য প্রমাণ সংগ্রহ করে সহযোগিতা করতে হবে, তা ছাড়া একার পক্ষে সব সম্ভব না।

নড়াইলের উন্নয়ন অগ্রগতি বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ইতিমধ্যে আমি একটি টিম দিয়ে নড়াইল উন্নয়ন মাস্টার প্লান এর কাজ শুরু করা হয়েছে। আমরা একটি পরিকল্পিত মডেল নড়াইল জেলা গড়তে চাই।

নড়াইল পৌরসভার উন্নয়নের জন্য পাঁচ কোটি ৩০ লাখ টাকা বরাদ্দ করিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিভিন্ন নদী তীরবর্তী এলাকায় ভাঙ্গনরোধে কাজ চলছে বাকি কাজ আগামি একসপ্তাহের মধ্যে শুরু হবে আশা করি।পরিকল্পিতভাবে নড়াইল শহরের উন্নয়ন, নদীর নাব্যতা রক্ষায় চিত্রা ও নবগঙ্গা নদী পুনঃখনন, স্বাস্থ্য সেবার মানোন্নয়ন, শিক্ষাখাতের উন্নয়নসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রের উন্নয়ন ও সমস্যার সমাধান করতে হবে।

মাশরাফি আরও বলেন, আমার কাছে অনেকেই আসেন ব্যক্তিগত সহযোগিতার জন্য। কেউ আসে চাকুরীর জন্য, আবার কেউ আসে ব্যক্তিগত সহযোগিতার জন্য। আপনারা আমার কাছে আসবেন, আপনার এলাকার উন্নয়নের জন্য।মতবিনিময় শেষে তিনি বলেন, আগামি ৩০ মে ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছি আপনার সবাই দোয়া করবেন। আমরা যেন দেশের জন্য ভাল কিছু উপহার দিতে পারি। ০২ জুন ওভাল ভেন্যুতে প্রথম বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা খেলা অনুষ্ঠিত হবে।

মতবিনিময় সভায় জেলা পর্যায় সকল সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাগণ, মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, সাংবাদিকবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

ভিডিওকলে প্রেমিকার আত্মহত্যা দেখেও বিয়ে করতে রাজি হল না প্রেমিক মাহিবি !

৩ বছর ধরে ইডেন কলেজের ছাত্রী ঝালকাঠির সায়মা কালাম মেঘার সঙ্গে এবং বরিশাল হাতেম আলী কলেজের ছাত্র ঝালকাঠির মাহিবি হাসানের প্রেমের সম্পর্ক।প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে তারা পারিবারিকভাবে বিয়ের সিদ্ধান্ত নিলেও বাধা হয়ে দাঁড়ান মাহিবির মা সেলিনা বেগম।রোববারও (২১ এপ্রিল) বিষয়টি নিয়ে তাদের মধ্যে তর্কাতর্কি হয়। একপর্যায়ে প্রেমিককে ভিডিও কলে রেখে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন প্রেমিকা মেঘা।

নিজের ওড়না সিলিং ফ্যানের সঙ্গে পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে প্রেমের সম্পর্কের ইতি টেনে না ফেরার দেশে চলে যান মেঘা। ভিডিওতে প্রেমিকার করুণ মৃত্যু দেখেও মন গলেনি প্রেমিক মাহিবির। প্রেমিকার মৃত্যুর পর সহপাঠী আফরিন জাহান ও মেঘার মা রুবিনা আজাদকে ফোন দিয়ে মৃত্যুর বিষয়টি জানান মাহিবি।বৃহস্পতিবার দুপুরে ঝালকাঠি শহরের পূর্ব চাঁদকাঠির বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন ডেকে এ আত্মহত্যার নির্মম বর্ণনা দেন মেঘার বাবা-মা।

এ সময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন- মেঘার চাচা আবুল বাশার। সংবাদ সম্মেলনে মেঘার মা রুবিনা আজাদ, বাবা আবুল কালাম ও চাচাতো ভাই মাইনুল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।জানা যায়, রোববার সন্ধ্যায় রাজধানীর কাঁঠালবাগান এলাকার ৭৪/১ ফ্রি স্কুল স্ট্রিটের চারতলা বাড়ির চারতলার একটি কক্ষ থেকে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ইডেন কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী সায়মা কালাম মেঘার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। সোমবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেরমর্গে ময়নাতদন্ত শেষে মেঘার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে ঝালকাঠি শহরের মুসলিম পৌর কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

তিনি কোনোমতেই মাহিবি-মেঘার সম্পর্ক মেনে নেননি। সেই সঙ্গে তাদের বিয়েতে আপত্তি জানান সেলিনা বেগম। মায়ের বাধায় প্রেমিকা মেঘাকে বিয়ে করতে টালবাহানা শুরু করেন মাহিবি।একাধিকবার বিয়ের দিন নির্ধারণ করে আবার পরিবর্তন করে নতুন কৌশল অবলম্বন করেন মাহিবি ও তার পরিবার। বিষয়টি নিয়ে প্রেমিক মাহিবির সঙ্গে একাধিকবার বাগবিতণ্ডা হয় প্রেমিকা মেঘার।

এ ঘটনায় রোববার রাতেই কলাবাগান থানায় মামলা করেন মেঘার চাচা আবুল বাশার। মামলায় তিনি উল্লেখ করেছেন, ঝালকাঠি শহরের পূর্ব চাঁদকাঠি এলাকার মাহিবি হাসানের (২৫) প্ররোচনায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে মেঘা।
আত্মহত্যার কারণ হিসেবে মেঘার বাবা আবুল কালাম আজাদ বলেন, ঝালকাঠি সরকারি মহিলা কলেজে পড়ার সময় শহরের পূর্ব চাঁদকাঠি এলাকার মৃত নফিসুর রহমানের ছেলে বরিশাল হাতেম আলী কলেজের ছাত্র মাহিবি হাসানের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে মেঘার। ২০১৭ সালে মেঘা ঢাকার ইডেন কলেজে ভর্তি হয়। কাঁঠালবাগান এলাকার একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতো মেঘা।

তিনি বলেন, ঢাকায় গিয়ে মাহিবি প্রায়ই মেঘার সঙ্গে দেখা করতো। মাস ছয়েক আগে মেঘা এবং মাহিবি বিয়ের ব্যাপারে একমত হয়। কিন্তু এতে বাধা হয়ে দাঁড়ান মাহিবির মা ঝালকাঠির কীর্ত্তিপাশা হাসপাতালের নার্স সেলিনা বেগম।শবে বরাতের দুইদিন আগে কাউকে না জানিয়ে ঢাকায় তাদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। এজন্য মেঘা কিছু কেনাকাটাও করেছিল। কিন্তু মাহিবি ওই দিন কথা দিয়ে বিয়ের জন্য আসেনি। এ নিয়ে মোবাইলে তাদের ঝগড়া হয়।

আবুল কালাম আজাদ আরও বলেন, রোববার বিকেলে মৃত্যুর কিছুক্ষণ আগেও মেঘা এবং মাহিবির ইমোতে কথা হয়। ভিডিও কলে কথা বলার সময়ই মেঘা তার প্রেমিক মাহিবিকে বলেছে, যদি বিয়ে না করো তাহলে এখনই আমি আত্মহত্যা করব। পরে মাহিবিকে ভিডিও কলে রেখে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলে পড়ে মেঘা। মর্মান্তিক এ দৃশ্য দেখেও পাষণ্ড মাহিবি মেঘাকে বিয়ে করার আশ্বাস দেয়নি।
মৃত্যুর পর মাহিবি মেঘার মা রুবিনা আজাদকে মোবাইলে মেঘার মৃত্যুর সংবাদ দেয়। মেঘার মা বিষয়টি ঢাকায় মেঘার বান্ধবী আফরিন জাহানকে জানালে কাঁঠালবাগানের বাসায় যায়। তারা বাসায় গিয়ে বাড়ির মালিকের সহায়তায় দরজা ভেঙে ঝুলন্ত অবস্থায় মেঘাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যায়। সেখানকার জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মেঘাকে মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে মেঘার চাচা আবুল বাশার কলাবাগান থানায় মামলা করেন। মামলার পর কলাবাগান থানা পুলিশের এসআই মো. সেলিম রেজা মেঘার মরদেহের ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা করেন।এসআই সেলিম রেজা বলেন, মেঘার চাচা যে মামলা করেছেন সেটির তদন্ত চলছে। মেঘার আত্মহত্যার পেছনে কারও প্ররোচনা থাকলে তা তদন্তে বেরিয়ে আসবে। দণ্ডবিধির ৩০৬ ধারায় আত্মহত্যায় প্ররোচনাকারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়া হবে।
এদিকে, বৃহস্পতিবার ঝালকাঠি শহরের পূর্ব চাঁদকাঠি বিআইপি কলোনির পেছনে মাহিবি হাসানের বাড়িতে গেলে দোতলা বাড়ির নিচতলার গেটে তালা লাগানো দেখা যায়।

বাড়ির নিচতলার ভাড়াটিয়া স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. গাজী হায়দার বলেন, আমি আমার দুই বোন নিয়ে নিচতলায় ভাড়া থাকি। বাড়ির মালিক নফিসুর রহমান কয়েক বছর আগে মারা গেছেন।তার স্ত্রী সেলিনা বেগম এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে দোতলায় থাকেন। কয়েকদিন ধরে তারা বাড়িতে নেই। তারা কোথায় চলে গেছেন আমরা জানি না। গত কয়েকদিন ধরে তাদের ঘর তালাবদ্ধ। কোথায় গেছে কাউকে কিছু বলে যায়নি তারা।

প্রতিবেশীরা জানান, বাবা নফিসুর রহমান মারা যাওয়ার পর বখাটে হয়ে যায় ছেলে মাহিবি হাসান। একাধিক মেয়ের সঙ্গে মাহিবির প্রেমের সম্পর্ক রয়েছ। তার মা এসব দেখলেও বাধা দেন না। তার প্রেমে বলি হলেন ইডেন কলেজের ছাত্রী সায়মা কালাম মেঘা।
প্রেমিকা মেঘার মৃত্যুর পর ঘরে তালা দিয়ে মা ও বোনকে নিয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গেছেন মাহিবি।