আরব আমিরাতের সকল প্রবাসীদের নতুন ভিসা সংশোধন সংক্রাত বিশেষ ঘোষণা !

সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রবেশরত সকল প্রবাসীদের ‘চাকরি খোঁজার’ সাথে সাথে তাদের ভিসার বৈধতার দিকে নজর দেওয়ার জন্য আরব আমিরের পরিচয় পত্র ও নাগরিকত্বের ফেডারেল অথরিটি স*তর্ক বার্তা দিয়েছে ।আরব আমিরাতে ইমেগ্রশন কর্তৃপক্ষ প্রবেশাধিকার এবং বাসস্থানের বিধান আইন অনুযায়ী

তাদের ভিসার মেয়াদ সংশো*ধন করে আইন লঙ্ঘন থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছে।কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে যে অস্থায়ী ছয় মাস থাকার ভিসার জন্য স্পনসর প্রয়োজন নেই এবং এটি ব্যতিক্রম বা এক্সটেনশন সাপেক্ষে ও নয়।যারা অস্থায়ী ভিসা পেয়েছেন তাদের সকলকে স্পনসর অধীনে তাদের বাসস্থান হস্তান্তর এবং ভিসা রিনিউ করা উচিত অথবা ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই দেশ ছেড়ে দেওয়া উচিত তা না হলে জরিমানা অন্তর্ভুক্ত করা হবে এবং এর

ফলে কারা নির্বাসন ও হতে পারে।কর্তৃপক্ষের পররাষ্ট্র বিষয়ক ও বন্দর মহাপরিচালক সৈয়দ রাকান আল রশিদী বলেন, এই ভিসার প্রবর্তন দেশের আইনসম্মত নেতৃত্বের নির্দেশনার কাঠামোর মধ্যেই এসেছে যাতে জনগণ আইনত ভাবে দেশে থাকতে পারে। হিউম্যান রিসোর্সেস অ্যান্ড এমআইরিটিজেশন মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় ‘চাকরি খোঁজার উদ্যোগ’ তৈরি করা হয়েছিল।আল রশিদী আরও বলেছেন যে চাকরি খোঁজার ভিসার অধীন লঙ্ঘনকারীরাও

রেসিডেন্সি ভিসার লঙ্ঘনকারীদের মতো একই আচরণ করবে। ছয় মাসের ভিসা মেয়াদ শেষ হলে প্রথম দিনের জন্য ১০০ দিরহাম জরিমানা করা হবে, এবং পরবর্তী প্রতি দিনের জন্য ২৫ দিরহাম করে জরিমানা করা হবে। ভিসার আইন মেনে চলার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানান যে তারা ভিসার মেয়াদ না বাড়িয়ে চাকরি নিশ্চিত করতে পারবে না।আল রাশিদী উল্লেখ করেছেন যে এই ভিসা থাকা অবস্থায় দেশটিতে থাকতে সক্ষম হয়ে আইনী চাকরি পেতে

পারেন। তিনি নাগরিকদের, বাসিন্দাদের, এবং বিনিয়োগকারীদেরকে এই ভিসাধারী নিয়োগের আগে তাদের স্পনসরশিপের অধীনে স্থানান্তরিত করার বিষয়ে নিশ্চিত করার জন্য আহ্বান জানান, অন্যথায় তারা 50,000 এর জরিমানা ভোগ করবে।তিনি জরিমানা, জেল এবং নির্বাসনের সহিত জড়িত থাকা ব্যক্তিদের নিবিড় অনুসন্ধান এবং প্রসিকিউশন প্রচারণা সংগঠিত করে লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে দৃঢ় পদক্ষেপ নেবেন।