পাকিস্তানেই ২৫ বছর পর প্রকাশ্যে দাউদ ইব্রাহিম!

এক বছর দু’বছর নয় দীর্ঘ ২৫ বছর পর দাউদ ইব্রাহিমকে প্রকাশ্যে দেখা গেছে বলে দাবি তুলেছে ভারতীয় গণমাধ্যম। বলা হচ্ছে, এতদিন ধরে তিনি পাকিস্তানেই লুকিয়ে আছেন। ভারতের জিনিউজ সম্প্রতি দাউদ ইব্রাহিমকে নিয়ে একটি সংবাদ প্রকাশ করে।

সেখানে বলা হয়, ডি কোম্পানির ইন্টারন্যাশনাল নেটওয়ার্কের দেখভালকারী জাবির মোতিবালের সঙ্গে দেখা করার সময় ক্যামেরাবন্দী হয়েছেন দাউদ। আর সেই ছবি এসেছে গুপ্তচরদের হাতে।

গোয়েন্দা রিপোর্টে আগেই প্রকাশ হয়েছে যে, পাকিস্তানে আত্মগোপন করে রয়েছে দাউদ। কিন্তু একাধিকবার বললেও, বারবার সেই তথ্য খারিজ করেছে পাকিস্তান সরকার। তবে এবার ইসলামাবাদের সমস্ত মিথ্যা কথা ফাঁস করেছে দাউদের সাম্প্রতিক একটি ছবি। প্রমাণ করে দিয়েছে, এতদিন ধরে একটানা মিথ্যে কথা বলে আসছে পাকিস্তান।

দাউদ আসলে সেখানেই লুকিয়ে রয়েছে। জানা গিয়েছে, ‘ডি কোম্পানি’র ইন্টারন্যাশনাল নেটওয়ার্কের দেখভালকরী জাবির মোতিবালের সঙ্গে দেখা করার সময় ক্যামেরাবন্দি হয়েছে দাউদ।

এবং সেই ছবি এসেছে গুপ্তচরদের হাতে। আর দাউদের সেই টাটকা ছবি এবার এসে পৌঁছেছে সাংবাদমাধ্যমের কাছে।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই দাউদের অসুস্থতার খবর প্রকাশ্যে এসেছিল। কিন্তু এই ছবিতে দাউদকে একেবারে সুস্থ-স্বাভাবিক বলেই মনে হচ্ছে। গুপ্তচরদের খবর অনুযায়ী, পাকিস্তানের করাচিতে গা ঢাকা দিয়ে রয়েছে দাউদ।

দিনকয়েক আগে ব্রিটেন থেকে গ্রেপ্তার করা হয় মোতিবালকে। এফবিআই-এর জেরার মুখে সে স্বীকার করেছিল, দাউদ পাকিস্তানেই রয়েছে। পাকিস্তান এখনও সে দাবি অস্বীকার করে চলেছে।

এফবিআই দাবি করেছে, দাউদের কাছের লোক জাবির। দাউদ ও তার নেটওয়ার্কের যাবতীয় তথ্য রয়েছে জাবিরের কাছে। ভারতীয় গোয়েন্দা এজেন্সির দাবি,

ডি কোম্পানির সঙ্গে পাকিস্তানের আইএসআই-এর গোপন আঁতাত রয়েছে। জাবিরের কাছে ব্রিটেনের দশ বছরের ভিসা রয়েছে। সেই ভিসার মেয়াদ শেষ হবে ২০২৮-এ।

গত ৪ জুলাই আমেরিকা জানায়, ভারতের মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায় থাকা মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিম পাকিস্তানেই আছেন।

১৯৯৩ সালের ১২ মার্চ মুম্বাইয়ের ১৩টি স্থানে বিস্ফোরণ হয়। এতে সাড়ে তিন শ সাধারণ মানুষ নিহত হয়।

ভারতের পুলিশের ধারণা, এ বোমা হামলায় দাউদের হাত ছিল। এরপর থেকেই তাকে ধরার জন্য খুঁজছে ভারতের পুলিশ।