জাপার একমাএ কাউন্সিলর সেন্টু বিজয়ী হয়েছেন !!

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে জাতীয় পার্টি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী শফিকুল ইসলাম সেন্টু ৬০৩১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত ডেইজি সারোয়ার পেয়েছেন ২০৯১ ভোট।নগরপিতা হিসেবে আতিকুল ইসলামের ওপরই ফের ভরসা রেখেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) জনগণ। ‘সবাই মিলে সবার ঢাকা; সুস্থ, সচল আধুনিক ঢাকা’ গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচনী মাঠে নামা বিশিষ্ট এ ব্যবসায়ী তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির
মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেন।

ডিএনসিসি নির্বাচনে মোট এক হাজার ৩১৮টি কেন্দ্রের সবকটির ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী নৌকা প্রতীকের আতিকুল ইসলাম পেয়েছেন ৪ লাখ ৪৭ হাজার ২১১ ভোট। তার নিকটতম
প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী তাবিথ আউয়াল পেয়েছেন ২ লাখ ৬৪ হাজার ১৬১ ভোট। রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাসেম বেসরকারিভাবে আতিকুল ইসলামকে বিজয়ী ঘোষণা করেন।
মেয়র হিসেবে নির্বাচিত করতে ভোট দেয়ার জন্য ঢাকা উত্তরের সকল নাগরিককে ধন্যবাদ
জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ এবং আওয়ামী লীগের সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনকে ধন্যবাদ জানাই। বিশেষভাবে
ধন্যবাদ জানাচ্ছি ঢাকা উত্তরের সকল নাগরিককে যারা আজ আমাকে ভোট দিয়েছেন।

ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের সর্বশেষ ফলাফল !

কোনোরূপ অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়া নির্বিঘ্নে সম্পন্ন হয়েছে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের ভোট। মেয়র ও কাউন্সিলর নির্বাচনের জন্য আজ সকাল আটটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্নভাবে ভোট নেওয়া হয় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে। এখন চলছে ভোট গণনা ও ফল ঘোষণা। এই নির্বাচনে মেয়র পদে জয়-পরাজয় নির্ধারণ হবে মূলত আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে। এখন পর্যন্ত বেসরকারিভাবে পাওয়া তথ্য থেকে দেখা যাচ্ছে ঢাকা দক্ষিণে ১১৫০ কেন্দ্রের মধ্যে এখন পর্যন্ত ১০৭৫ টি কেন্দ্রের ফল ঘোষণা করা হয়েছে। এতে নৌকা

প্রতীকের প্রার্থী ফজলে নুর তাপস পেয়েছেন ৩,৯৯,৬৯৫ ভোট, ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী প্রকৌশলী ইশরাক পেয়েছেন ২,১৯,০২৭ ভোট। এ ছাড়া এই সিটিতে জাতীয় পার্টির সাইফুদ্দিন মিলন ৪৭৭২, হাতপাখা প্রতীকে ইসলামি আন্দোলনের প্রার্থী আবদুর রহমান পেয়েছেন ২২,৫৭৬ ভোট, মাছ প্রতীকে আবদুস ছামাদ
সুজন ১০,৮৭৬ ভোট, ডাব প্রতীকে আক্তারুজ্জামান আয়াতুল্লা পেয়েছেন ২,০৬০ ভোট, বাহরাম সুলতান বাহার আম প্রতীকে পেয়েছেন ২,৭০০ ভোট। অন্যদিকে ঢাকা উত্তরের এখন পর্যন্ত ১৩১৮ কেন্দ্রের মধ্যে ৮১১ কেন্দ্রের ঘোষিত ফলাফলে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম পেয়েছেন ২,৫৯,৯৮৫ ভোট এবং বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল পেয়েছেন ১,৫৯,৩৬১ ভোট।
ঢাকা উত্তর সিটিতে মোট সাধারণ ওয়ার্ড ৫৪টি ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড ১৮টি। এই সিটিতে মোট ভোটার সংখ্যা ৩০ লাখ ১০ হাজার ২৭৩ জন। এখানে ভোটকেন্দ্র রয়েছে ১ হাজার ৩১৮টি।

দক্ষিণ সিটিতে মোট সাধারণ ওয়ার্ড ৭৫, সংরক্ষিত ওয়ার্ড ২৫। এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ২৪ লাখ ৫৩ হাজার ১৯৪ জন। ভোটকেন্দ্র ১ হাজার ১৫০টি।ভোটে বড় ধরনের কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটলেও শুরু থেকেই বিএনপি নানা অভিযোগ করে আসছে। কয়েকটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি ছিল কম। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোট কারচুপি, এজেন্ট ঢুকতে না দেওয়া, অন্যের ভোট জোর করে দেওয়ার অভিযোগ করে ১৯৮টি কেন্দ্রে ভোট স্থগিত চেয়েছে বিএনপি। শনিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি
করপোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার এবং যুগ্মসচিব বরাবর এক চিঠিতে এই আহ্বান জানায় বিএনপি।
অন্যদিকে সব কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের বের করে দেয়াসহ রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবুল কাসেমের কাছে ৩২টি অভিযোগ দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে বিএনপির প্রার্থী
তাবিথ আউয়াল। শনিবার দুপুর সোয়া ১টায় অভিযোগ নিয়ে আসেন তাবিথের প্রতিনিধি জুলহাস।

আলোচিত সেই ছাত্রলীগ নেত্রী এশাকে বিয়ে করছেন সোহাগ

কোটা সংস্কার নিয়ে ছাত্রদের আন্দোলন চলাকালে আলোচিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হল শাখা ছাত্রলীগের তৎকালীন সভাপতি ইশরাত জাহান এশার সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন ছাত্রলীগের ওই সময়ের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ।এ নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন সোহাগ ওএশার পরিবারের সদস্যরা। এ-সংক্রান্ত একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করে সোহাগ এ তথ্য

জানান।ছবির ক্যাপশনে সাইফুর রহমান সোহাগ লিখেন, ‘আমার অভিভাবক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা আমাদের বিয়ের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ঠিক করে দিয়েছেন।সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন। সবাইকে ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা। Happy New year-2020।’কোটা সংস্কারের দাবিতে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের টানা আন্দোলনের মধ্যে ২০১৮ সালের ১১ এপ্রিল মধ্যরাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হলে
ছাত্রীদের উপর নির্যাতনের এবং এক ছাত্রীর র**গ কে**টে দেওয়ার গুজব ছড়িয়ে পড়লে উত্তে*জনা সৃষ্টি হয়। ওই সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া

কামাল হলের মোর্শেদা নামের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের এক ছাত্রীর র**ক্তাক্ত পায়ের ছবিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে।ওই ছবির সঙ্গে গু*জব ছড়িয়ে পড়ে যে হলের মেয়েদের র*গ কে*টে দিয়েছেন এশা। এইগুজবের ওপর ভিত্তি করে হলের মেয়েরা তাঁকে অব*রুদ্ধ করে ফেলেন। এরপর ছাত্রীরা এশাকে মারধর করেন এবং জুতার মা*লা পরিয়ে লাঞ্ছিত করেন।তাৎক্ষণিক খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী ওই হলে গিয়ে এশাকে বহিষ্কারের ঘোষণা দেন। ওই রাতেই ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ

বিজ্ঞপ্তিতে এশাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কারের ঘোষণা দিয়ে গণমাধ্যমে বিবৃতি পাঠান। এ ছাড়া ঘটনা তদন্তে কমিটিও গঠন করে ছাত্রলীগ। পরে জানা যায়, মোর্শেদার পা কেউ কাটেনি, বরং এশার কক্ষের জানালার কাচে লাথি মা*র*তে গিয়ে তাঁ*র পা কে**টে যায়।গতকাল মঙ্গলবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন সোহাগ ও এশার পরিবারের সদস্যরা।এরপর ছাত্রলীগের সাবেক নেতারা এশার সঙ্গে দেখা করেন এবং তাঁর সঙ্গে ঘটে যাওয়া
ঘটনার তী*ব্র নি*ন্দা জানান। বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও গণমাধ্যমে কথা বলেছেন।পরবর্তী সময়ে এশার বহি*ষ্কার আদেশ প্রত্যাহার করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও ছাত্রলীগ। ঘটনা তদন্তের দায়িত্বে থাকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আবিদ আল হাসান ওই সময় সংবাদ সম্মেলনে

করে বলেন, সেই রাতে পরিস্থিতিটাই তখন এমন ছিল যে তাৎক্ষণিকভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য এশাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছিল।তদন্ত কমিটির আরেক সদস্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স বলেন, ‘ওই ঘটনার সব ভিডিও এবং প্রমাণ বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, ওই হলে ছাত্রলীগের একটি অংশ এশার ওপর নি*র্ম*মভাবে নি*র্যা*তন চালিয়েছে। অভিযোগে (রগ কাটা বা পা কাটা) সম্পৃক্ততা পাওয়া

আমার বয়স হয়েছে, ছুটি দরকার ছিল: শেখ হাসিনা !

নবম বারের মতো আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেছেন, ‘আমি চাচ্ছিলাম, আমাকে একটু ছুটি দেবেন। ভাবতে হবে, আমার বয়স হয়ে গেছে। আমার বয়স এখন ৭৩।

এবারও আমাকে দায়িত্ব দিয়ে দিলেন আপনারা।’ শনিবার (২১ ডিসেম্বর) আওয়ামী লীগের ২১তম কাউন্সিলের দ্বিতীয় দিনে সভাপতি পদে পুনর্নির্বাচিত হন শেখ হাসিনা। এ সময় শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘১৯৭৫ সালে মা-বাবা-ভাই-বোন সব হারিয়েছি। আওয়ামী লীগকে আমার পরিবার হিসেবে নিয়েছি। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ভালোবাসাই ছিল আমার চলার শক্তি।’

তিনি বলেন, ‘আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছেন সে দায়দায়িত্ব যেন সঠিকভাবে পালন করতে পারি’। এদিকে, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আবারও নির্বাচিত হয়েছেন ওবায়দুল কাদের।

এক নজরে আওয়ামী লীগের নবগঠিত কেন্দ্রীয় কমিটি, কার কোন পদ দেখুন !

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে শনিবার আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলনে সভাপতি-সম্পাদকসহ কেন্দ্রীয় কমিটির নাম ঘোষণা করা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাড়ে ৭ হাজারের বেশি কাউন্সিলর। সভাপতি-সম্পাদকসহ যারা এবার নির্বচিত হয়েছেন তারা হলেন

সভাপতি : শেখ হাসিনা
সাধারণ সম্পাদক : ওবায়দুল কাদের
যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক : মাহবুবুল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, ড. হাসান মাহমুদ, দীপু মনি।
সাংগঠনিক সম্পাদক : আহমদ হোসেন, বিএম মোজাম্মেল হক, মির্জা আজম, এসএম কামাল, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন।
প্রচার ও প্রকাশানা সম্পাদক : ড. আবদুস সোবহান গোলাপ
দপ্তর সম্পাদক : ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়ুয়া

প্রেসিডিয়াম সদস্য
আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলনে প্রেসিডিয়াম সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, শাজাহান খান, সাজেদা চৌধুরী, মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মোহাম্মদ নাসিম, কাজী জাফরুউল্লাহ, ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ড. আবদুর রাজ্জাক, নুরুল ইসলাম নাহিদ, ফারুক খান, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, অ্যাডভোকেট আবদুল মান্নান খান, রমেশ চন্দ্র সেন, পীযুস কান্তি ভট্টাচার্য।

এদের মধ্যে নানক ও আব্দুর রহমান সদ্য বিলুপ্ত কমিটিতে যুগ্ম সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

এর আগে কণ্ঠভোটে দলের সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনা এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ওবায়দুল কাদের পুনর্নির্বাচিত হন। নবম বারের মতো এ পদে নির্বাচিত হলেন শেখ হাসিনা। এ ছাড়া টানা দ্বিতীয় বারের মতো নির্বাচিত হলেন ওবায়দুল কাদের।

সকাল ১০টায় দ্বিতীয় দিনের অধিবেশন শুরু হয়। কাউন্সিল অধিবেশনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতির জনকের আদর্শে উজ্জীবিত হতে নেতাকর্মীদের আহ্বান জানান তিনি। শেখ হাসিনা বলেন, সোনার বাংলা গড়তে, দলকে সুসংগঠিত করার বিকল্প নেই।

একাধিক স্বামীর ঘর করা সেই লাবণীকে ছাত্রলীগ থেকে অব্যাহতি!

দলের শুদ্ধি অভিযানের অংশ হিসাবে বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত ও গঠনতন্ত্রবিরোধী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে ৩২ নেতা-কর্মীকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে দল থেকে। এর মধ্যে কেন্দ্রূীয় কমিটির বেশ কয়েকজন নেতার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার জন্য ২১ জনকে অব্যাহতি ও

বাকি ১১ জন স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নিয়েছেন।এর আগে মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) রাত ১১টার দিকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান কান ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক সাংগঠনিক নির্দেশপত্রে এই ৩২ জনকে অব্যাহতি দেন।চলতি বছরের ১৩ মে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির পূর্ণাঙ্গ তালিকা ঘোষণা করা হয়। সেই কমিটিতে পদ না পাওয়া না পাওয়া নিয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় পদধারী শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেন লাবণী।তার স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুপক্ষের সং*ঘর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু)’র তিন নেতাসহ

৮ জন আহত হন। এর পর আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসেন লাবণী।আলোচনা-সমালোচনার এক পর্যায়ে ছাত্রলীগের কমিটিতে সংস্কৃতিবিষয়ক উপসম্পাদকের পদ দেওয়া হয় মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতায় পারফর্ম করা লাবণীকে।মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় চূড়ান্ত পর্বে বিচারক সাদিয়া ইবনাজ ইমি লাবণীকে প্রশ্ন করেন-‘তোমাকে যদি তিনটা উইশ করতে বলা হয় সে উইশগুলো কী হবে? এবং কাকে উইশ করতে চাও?’বিচারকের উত্তরে লাবণী বলেছিলেন- ‘বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সি-বিচ কক্সবাজার, সুন্দরবনও পাহার-পর্বতকে আমি উইশ করতে চাই।’ লাবণীর এমন উত্তরে সোস্যাল মিডিয়ায়

ব্যাপক ট্রল হয়। সেই সেগমেন্ট নিয়ে টিকটক ভিডিও বানানে হয় তখন।ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে পদ পাওয়ার পর উচ্ছ্বসিত লাবণী বলেছিলেন- ‘এত বড়
ঐতিহ্যবাহী এক ছাত্র সংগঠনে পদ পেয়ে আমি খুবই আনন্দিত। এখন নিজের অবস্থান থেকে যতটা সম্ভব দায়িত্ব পালন করতে চাই। সেই পথে সবার সহযোগিতা চাই।’ওই সময় ভবিষ্যতে মিডিয়াতে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করে লাবণী বলেছিলেন, ‘হ্যা,পড়াশোনা আর রাজনীতির জন্য সময় করে উঠতে পারছি না। তবে রাজনীতির পাশাপাশি আগামীতে মিডিয়ার কাজে সম্পৃক্ত থাকতে চেষ্টা করবো।’জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক

সম্পাদক লাবণী জবি থেকে বিবিএ(স্নাতক) সম্পন্ন করে বর্তমানে এমবিএতে পড়ছেন। তিনি অনেক দিন ধরেই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত।১৩ মে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির পূর্ণাঙ্গ তালিকা ঘোষণার তিন দিন পর ১৬ মে গণমাধ্যমে হঠাৎ করেই খবর আসে, ছাত্রলীগের পদ পাওয়া আলোচিত এই সুন্দরী আফরিন লাবণী নাকি একাধিক স্বামীর ঘর করেছেন!

রাজধানীতে হঠাৎ বিএনপির মশাল মিছিল !

হঠাৎই গুলিস্তান জিরো পয়েন্ট থেকে সারি সারি মশাল হাতে লোকজন যেতে শুরু করল পল্টনের দিকে। সারির একদম সামনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে দেখে বোঝা গেল মিছিলটি বিএনপির। কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম
খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির এই মশাল মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার (৭ ডিসেম্বর) মিছিলটি গুলিস্তান জিরো পয়েন্ট থেকে শুরু হয়ে পল্টনের মোড়ে এসে শেষ হয়।

মিছিল শেষে এক পথসভায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে রুহুল কবির রিজভী বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন ও চারবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় সাজা দেয়ার পরও নির্যাতনের মাত্রা আরো বৃদ্ধি করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, বর্তমান ফ্যাসিবাদী সরকার বেগম জিয়াকে তার ন্যায়সঙ্গত অধিকার জামিন থেকেই কেবল বঞ্চিত করছে না; বরং শারীরিকভাবে ভীষণ অসুস্থ একজন বয়স্ক
নারীকে সুচিকিৎসা থেকেও বঞ্চিত করছে। আমি বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানাই-এখন আর ঘরে বসে থাকলে চলবে না।

গণতন্ত্রের আপোসহীন নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করতে সকল বাধা উপেক্ষা করে এখন রাস্তায় নামতে হবে। মিছিলে অন্যদের মধ্যে অংশগ্রহণ করেন ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু আশফাক, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য
আমিনুল ইসলাম, নিপুণ রায় চৌধুরী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা শাহীন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক কাউসারসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী।

প্রশাসন জানে কোথায় মাদক ব্যবসা হয় , প্রশাসন চাইলেই মাদক বন্ধ করতে পারে : মাশরাফি !

প্রশাসন জানে কোথায় মাদক ব্যবসা হয়, কারা মাদক ব্যবসা করে। প্রশাসন চাইলেই মাদক বন্ধ করতে পারে। মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় নড়াইলের সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত মাদকবিরোধী কনসার্টে এসব কথা বলেন নড়াইলের সংসদ সদস্য ও জাতীয় ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। তিনি বলেন, আমি জানি প্রশাসন মাদক আটকাতে পারে। আমি আশা করব যাতে প্রশাসন আরো শক্ত হয়।

মাশরাফি আরো বলেন, ‘মাদকবিরোধী আন্দোলন করাটা কঠিন চ্যালেঞ্জ । যত বড় শক্ত হাত হোক না কেন তাদের আটকাতে হবে। একা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলছেন, জনপ্রতিনিধিরা বলছেন, কিন্তু আমার কাছে মনে হয় আপনাদের গুরুত্ব সবচেয়ে বেশি। আপনারা সবাই চেষ্টা করবেন। আমি বিশ্বাস করি প্রশাসন চাইলে এটা সম্ভব।

আবারও পেছাল খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি ! পরবর্তী জামিন শুনানি ..

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পরবর্তী জামিন শুনানি ৫ ডিসেম্বর। এই মামলায় তিনি সাত বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ছয় বিচারপতির বৃহত্তর আপিল বেঞ্চে এ বিষয়ে শুনানি শুরু হয়।

খালেদার জামিন আবেদনটি শুনানির জন্য আজ আপিল বিভাগের কার্যতালিকায় ৮ নম্বর ক্রমিকে রাখা হয়। আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন শুনানি করেন। এর আগে গত ২৫ নভেম্বর প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ শুনানির জন্য এ দিন ধার্য করেন। ওই দিন আদালত বলেছিলেন, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে এই জামিন নিয়ে শুনানি হবে।

এর আগে ১৭ নভেম্বর এ আবেদন উপস্থাপনের পর আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান শুনানির জন্য ২৫ নভেম্বর পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে
পাঠানোর আদেশ দেন। গত বছরের ২৯ অক্টোবর পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রশাসনিক ভবনের সাত নম্বর কক্ষে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক মো. আখতারুজ্জামান (বর্তমানে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি) জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

একইসঙ্গে তাকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

আবারও পেছাল খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পরবর্তী জামিন শুনানি ৫ ডিসেম্বর।এই মামলায় তিনি সাত বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ছয় বিচারপতির বৃহত্তর আপিল বেঞ্চে এ বিষয়ে শুনানি শুরু হয়। খালেদার জামিন আবেদনটি শুনানির জন্য আজ আপিল বিভাগের কার্যতালিকায় ৮ নম্বর ক্রমিকে রাখা হয়। আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে সিনিয়র

আইনজীবী অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন শুনানি করেন।এর আগে গত ২৫ নভেম্বর প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ শুনানির জন্য এ দিন ধার্য করেন। ওই দিন আদালত বলেছিলেন, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে এই জামিন নিয়ে শুনানি হবে। এর আগে ১৭ নভেম্বর এ আবেদন উপস্থাপনের পর আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান শুনানির জন্য ২৫ নভেম্বর পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠানোর আদেশ দেন। গত বছরের ২৯ অক্টোবর পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারের

প্রশাসনিক ভবনের সাত নম্বর কক্ষে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক মো. আখতারুজ্জামান (বর্তমানে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি) জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। একইসঙ্গে তাকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।